ডিলারশিপ বিজনেস শুরু করার পূর্বে জেনে নিন বিস্তারিত…

কোনো কোম্পানি, দেশব্যাপী পণ্য মার্কেটিংয়ের স্বার্থে সরকার থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিলো ৷ নতুন জেলায় শাখাবিস্তারের পরিকল্পনা করলে, অবশ্যই নিজস্ব লোক নিয়োগ দিতে হবে ৷ নতুনভাবে একটি শাখা খুলতে হলে অনেক কিছু মাথায় রেখে কাজ করতে হয়, তাছাড়া এটি অনেক ব্যয়বহুল ও ঝুকিপূর্ণ ৷ কোন কোম্পানির প্রয়োজনীয়তা না থাকলে লোক নিয়োগ দেয় না, আর একটি ভালো কোম্পানির প্রয়োজন হটাৎ আসে না ৷ এজন্য সব থেকে সহজ পদ্ধতি হলো স্থানীয়ভাবে ডিলার নিয়োগ করা ৷ যাতে ডিলারের মাধ্যমে উক্ত এড়িয়া কাভারেজ করা যায় ৷

মনে করুন জোনাকি কোম্পানি তাদের নিদৃষ্ট স্থানে ডিলার নিয়োগ দিবে, আপনি যদি সে জায়গার স্থানীয় হন, আর শর্ত মোতাবেক কাজ করতে চান, তারা আপনাকে সে জায়গার দায়িত্ব দিবে ৷ সেখানে পণ্য বিপণন থেকে শুরু করে, ভোক্তাকে যে-কোন সুযোগ সুবিধা আপনার মাধ্যমে দেয়া হবে ৷

কোম্পানির ভূমিকা
ডিলার নিতে ও দিতে উভয়ের কিছু শর্ত থাকে, প্রায় কোম্পানির জনপ্রিয় শর্ত হলো, আপনাকে সব থেকে কম রেটে পণ্য দিবে, ড্যামেজ পণ্য তারা নিলেও বাদবাকি সবকিছু আপনাকে করতে হবে ৷ কিছু কোম্পানি অগ্রীম জামানত নেয়/টাকার পরিমাণে পণ্য দেয় ৷ আবার কেউ বাকিতে পণ্য দিয়ে থাকে, অর্থা বিক্রি করে কোম্পানিকে টাকা দিতে হবে ৷ আরো অনেক নিয়ম ইত্যাদি ৷

পণ্য বাকি প্রসঙ্গ
যদি আপনার মার্কেটিং টিম, কাভার ভ্যান, অফিস ও গোডাউন থাকে, তবে কোম্পানির নিজস্ব লোক এসে ফিল্ড সার্ভে করবে, আপনার সবকিছু ঠিক আছে কি না ৷ তারা যুক্তিপূর্ণ মনে করলে ননজুডিশিয়াল স্টাম্পে চুক্তি করে (অনেকে ব্যাংক গ্যারান্টি চায়) বাকিতে/কিছু বাকিতে পণ্য দিবে ৷ এসব নতুন কোম্পানির ক্ষেত্রে হয়, সাধারণত পুরাতন কোম্পানি বাকি দেয় না ৷


#যদি মার্কেটিং টিম ও লাইন রানিং থাকে,তবে পুরাতন কোম্পানি বা বড় ডিলাররা এমনটি করেঃ আপনার টিমের মাধ্যমে তাদের পণ্যের অর্ডার কেটে দিলেন, তারা ডেলিভারি করাবে, আপনি চুক্তি মোতাবেক কমিশন পাবেন ৷

কোম্পানির ডিলার নিতে নতুন অবস্থায় করণীয়


ডিলার ব্যবসা হলো অন্যের পণ্য আপনি নিজে মার্কেটিং করা, নেতৃত্ব এখানে বড় জিনিস, বিভিন্ন মানুষের সাথে মেশা, কথা বলা অল্পতেই মানুষের মন জয় করা এসব হলো এই পেশার মৌলিক বিষয় ৷

নিজের দিকে দেখুন উপরের গুন গুলো আপনার ভেতর আছে কি না, পণ্য যারই হোক, সর্বত্র প্রয়োজন হবে আপনার নিজের দক্ষতা ৷ এড়িয়া ভিত্তিক কর্মী নিয়োগ দেয়া তেমন কঠিন কিছু নয়, সব থেকে বড় বিষয় হলো, নেতৃত্ব, কর্মীদের মন প্রফুল্ল রাখা যাতে তারা আগ্রহ নিয়ে কাজ করে ইত্যাদি ৷

কোন কোম্পানির ডিলার নিতে গেলে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে, আপনি যে পণ্য নিয়ে কাজ করতে চান, সেটার প্রসারতা কতটুকু, আপনার এড়িয়ার মানুষগুলো সেটা সম্পর্কে কি পর্যন্ত জানে, সেটার মার্কেটিং কতটুকু গড়িয়েছে, আপনাকে স্বরণ রাখতে হবে নতুন একটি পণ্য বাজারে আসলে মানুষ যাচাইয়ের জন্য তা সহজে গ্রহণ করতে পারে, তাই বলে সবসময়ই নয়, পণ্যের গুণগতমান বা বিপণনের দিকটা ভিন্ন ৷ যা হোক এরকম আরো অনেক বিষয় মাথায় রেখে, সঠিক পরামর্শ নিয়ে হতে পারেন যে-কোন কোম্পানি/ব্রান্ডের একজন সম্মানিত ডিলার ৷

ডিলার চুক্তি বিস্তারিত
মূলত ডিলারশিপ ব্যবসা হলো কোম্পানি সাথে চুক্তি করা, কোম্পানি পণ্য উৎপাদণ করবে, আপনি আপনার এলাকায় মার্কেটিং করবেন ৷ মার্কেটিং করতে এসআর প্রয়োজন হবে, অনেক সময় কোম্পানি এসআর/বেতন দেয় ৷ কোম্পানির সাথে চুক্তির বিষয় হবে এসআর আপনি দিবেন নাকি তারা? যদি কোম্পানি এসআর দেয়, তবে মাসের শুরুতে বেতন বাবদ পণ্য অগ্রীম পাঠাবে ৷


#কোম্পানি যদি আপনার এরিয়ার এসআর নিয়োগ করে তবে তারা বেতন দিবে, এখানে আপনি ডিপোর কমিশন পাবেন ৷ এটা হবে এমন যে; আপনি টাকা বিনিয়োগ করে, নিজেই তদারকি করলেন, ফলে আপনার টাকা আপনার কাছেই থাকলো ৷ এতে লভ্যাংশের মান বন্টন হবে কর্মী ও মালিক পক্ষ (আপনার) উপর ৷


#কোম্পানি এসআর নিয়োগ না করলে, চুক্তির মাধ্যমে পণ্য এনে, মার্কেটে লোক নিয়োগ করবেন ৷ এতে কর্মীদের বেতন/বোনাস ও অন্যান্য বিল আপনাকে দিতে হবে ৷ কোম্পানি থেকে সরাসরি ডিলার কমিশন পাবেন ৷


#আপনি কিভাবে পণ্য হাতে পাবেন এ বিষয়টি পরিষ্কার করে নিন, সাধারণত পরিবহন খরচ কোম্পানি বহন করে (বিশেষ করে যাদের পিকআপ থাকে) ৷ পণ্য কম/দূরে হলে কুরিয়ারের মাধ্যমে পাঠানো, এখানে খরচ কোন পক্ষ বহন করবে এটা চুক্তির অংশ ৷


#মেয়াদার্ত্তীর্ণ পণ্য-পরিবহনে ক্ষয়-ক্ষতি হওয়া পণ্য কোম্পানি কতটুকু দায় বহন করবে, এবং তা ফেরত দিতে পরিবহনের খরচ কোন পক্ষ নিবে ৷ যদিও এটা কোম্পানি বহন করার কথা, তবুও আমদানি করা পণ্যে ডিলারের উপর দায় বর্তায়, কাজেই এই বিষয়ের উপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে ৷


#(অনেক সময়) একটি পণ্য জনপ্রিয় হওয়া ডিলারের সমস্যার কারণ; তাই ডিলারশিপের মেয়াদ ও আপনার ডিলারশিপ বাতিলকরণ প্রসঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করতে হবে ৷ যাতে কোম্পানি চাইলেই আপনার ডিলারশিপ বাতিল করত না পারে ৷


#কোন কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার আগে, সরাসরি অফিসে যান, অফিস গোডাউন ও উৎপাদনের স্থান দেখুন, প্রতিবেশীদের সাথে আলাপ করুন, কোম্পানির হালচাল কেমন, জানার চেষ্টা করুন তাদের ঋণের পরিমাণ কেমন, কর্মীদের ঠিকমতো বেতন দেয় কি না ৷ কেউ পণ্য নিয়ে প্রতারিত হয়েছে কি না ৷ কখোনো কোম্পানিকে এডভান্স করবেন না, অনেক কোম্পানি টাকা নিয়ে পণ্য তৈরি করে দেয় ৷

ডিলার ব্যবসায় প্রতারণা
ব্যবসায় লাভ লস আছে, কিন্ত প্রতারণা/প্রতারিত হওয়া ভিন্ন কথা ৷ ডিলার ব্যবসায় সব থেকে বেশি মানুষ প্রতারিত হয় ৷ কারণ সাধারণত মানুষ কোম্পানির সাথে ডিল করে পত্রিকা/টিভি বিজ্ঞাপন দেখে ৷ বর্তমানে অনেক কোম্পানি সোস্যাল সাইটে ডিলারের বিজ্ঞাপন দেয় ৷ কিছু মানুষ বেশি কমিশন দেখে ফোনে কথা বলে কন্ডিশনে পণ্যের অর্ডার করে ৷

কুরিয়ারের নিয়ম হলো, পণ্য গ্রহণের আগে খুলে দেখা নিষেধ ৷ আমার দেখা বেশ কিছু ঘটনা আছে যারা টাকা জমা দিয়ে পণ্য উঠালো এবং গোডাউনে এনে খুলে দেখে সব নকল ও পঁচা যার মূল্য নেই ইত্যাদি ৷

এ প্রসঙ্গে শেষ কথা
কোম্পানির সাথে ডিলারশিপের চুক্তি করার জন্য প্রয়োজন সুন্দর একটি চুক্তিনামা ৷ ব্যবসা স্থায়ী করার স্বার্থে চুক্তির কপিটি অবশ্যই রেজিষ্টেশন করতে হবে, যাতে কোন পক্ষ সমস্যা না করতে পারে ৷ আর আমার বিজনেস ২৪ এর সাথে বিজনেস করতে পারবেন।

Leave A Comment

Cart
Your cart is currently empty.