প্রথমবার গাড়ি ক্রেতাদের জন্য সেরা ১০ টি ছোট গাড়ি

Dyuti Deepa Nandi:: আপনি কি রোজকার যাতায়াতে স্বাচ্ছন্দ্য আনতে গাড়ি কেনার কথা ভাবছেন, কিন্তু বড় মাপের বাজেট নেই? তাহলে এই লেখাটি শুধুমাত্র আপনারই জন্য।

প্রাত্যহিক ঘোরাঘুরির জন্য ছোট গাড়িগুলো একটি দারুণ সমাধান। এগুলো অপেক্ষাকৃত কম দামের এবং জ্বালানি খরচও কম। আপনি যদি প্রথম গাড়ি কেনার কথা ভেবে থাকেন বা আপনার পুরোনো বড় গাড়িটি বদলে ফেলতে চান তবে ছোট একটি গাড়ি এক্ষেত্রে চমৎকার পছন্দ।

এই লেখাটিতে আমরা বাংলাদেশের সেরা দশটি ছোট গাড়ি নিয়ে আলোচনা করবো যাতে করে প্রথমবারের মতো গাড়ি কেনার ক্ষেত্রে আপনি বুঝতে পারেন কেন এর মধ্যে যেকোনোটি হতে পারে আপনার জন্য সঠিক পছন্দ।

টাটা জেনএক্স ন্যানো

টাটা জেনএক্স ন্যানো

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ৮,৯৫,০০০ টাকা

যখনই আপনি ছোট গাড়ির কথা ভাববেন, যে গাড়ির নাম সবার প্রথমে মাথায় আসার সম্ভাবনা রয়েছে তা হচ্ছে টাটা ন্যানো। মোটরবাইকের অন্যতম বিকল্প হিসেবে এটাকে ভারতে জনপ্রিয় করে তোলা হয়েছিলো। ছোট পরিবারের স্বল্প বাজেটের মধ্যে এটি এখন উত্তম পছন্দ। এই মডেলটি ক্লাসিকেরই একটি নতুন উন্নততর সংস্করণ, যদিও এতে অনেক জিনিস একই রকম রেখে দেয়া হয়েছে। তুলনামূলকভাবে গড়পড়তা কার্যক্ষমতাসম্পন্ন এ গাড়িটির কোনো স্বয়ংক্রিয় গিয়ার নেই, তবুও এই মুল্যসীমার মধ্যে এটি সবচেয়ে টেকসই গাড়িগুলোর মধ্যে একটি। টাটা ন্যানো সর্বোচ্চ কঠোর পরিস্থিতি সহ্য করতে সক্ষম এবং ঠিকমতো রক্ষণাবেক্ষণ করলে এই গাড়ি আজীবন স্থায়ী হবে।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ৬২৪ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ২১.৯ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৩৮ পিএস @৫৫০০ আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ৫১ নিউটন মিটার @৪০০০ আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- ৪ স্পিড ম্যানুয়াল

টাটা ইন্ডিগো ইসিএস

টাটা ইন্ডিগো ইসিএস

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ১৪,৭৫,০০০ টাকা

টাটা ইন্ডিগো দেখতে ন্যানোর মতোই, কিন্তু কিছুটা বড়। এ গাড়িতে ম্যানুয়াল এবং অটো দুরকম গিয়ারেরই সুবিধা রয়েছে এবং এতে পরিসর আরও অনেক বেশি। গাড়িটা ভালো কার্যক্ষমতার একটা সুনির্মিত সেডান, যেটার তিনটি প্রকারভেদ বাজারে রয়েছেঃ পেট্রোলচালিত, সিএনজি/পেট্রোল উভয়চালিত এবং ডিজেলচালিত। আপনি এ তিনটির মধ্যে কোনটা পছন্দ করছেন, তার উপরই এ গাড়ির মাইলেজ নির্ভর করে।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৪০৫ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ১৫.৬৪-২৫ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৭০ পিএস @ ৪৫০০ আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১৩৫ নিউটন মিটার @ ২৫০০ আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- ৫+১ স্পিড ম্যানুয়াল/অটো

টয়োটা অ্যাকোয়া

টয়োটা অ্যাকোয়া

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ১৩,৮০,০০০ টাকা

টয়োটা অ্যাকোয়া প্রিয়াস সি নামেও পরিচিত। শহরের অভ্যন্তরে চালানোর জন্যে নির্মিত সম্পূর্ণ হাইব্রিড শ্রেণীর এ গাড়ি চলে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির সংমিশ্রণে। আমাদের বাছাই তালিকায় এটিই সর্বোচ্চ মাইলেজ (মনোমুগ্ধকর ৩৩/৩৮ কিলোমিটার) দেয়। টয়োটা অ্যাকোয়া একটি ভিভিটি-আই পেট্রোল ইঞ্জিনসহ ১.৫ লিটার ডিওএইচসি ফোর-সিলিন্ডার, ১৬ ভাল্ভ্-এর টয়োটা জেনারেশন ৩ হাইব্রিড সিনারজি ড্রাইভে সজ্জিত। এই গাড়ি প্রচলিত টয়োটা প্রিয়াসেরই একটি কমদামি বিকল্প, তবে জ্বালানি বাঁচাতে আরও বেশি দক্ষ।

টয়োটা অ্যাকোয়ার সাথে এই রেঞ্জেরই আরেকটি জনপ্রিয় মডেল টয়োটা ইয়ারিসের কিছুটা সাদৃশ্য রয়েছে।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৪৯৬ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ৩৩-৩৮ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৭২ বিএইচপি
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১০১ নিউটন মিটার
  • ট্রান্সমিশন- ই-সিভিটি (এ)

টয়োটা ভিটজ

টয়োটা ভিটজ

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ১২,৮০,০০০ টাকা

প্রথম দিকে অনেক দেশে টয়োটা ইয়ারিস ও টয়োটা ইকো হিসেবেই টয়োটা ভিটজ বিক্রি হয়েছিলো। এটি তিন এবং পাঁচ দরজার একটি হ্যাচব্যাক সাবকমপ্যাক্ট গাড়ির লাইন। ২০১৯ সালে জাপানি নির্মাতারা ভিটজ লাইন বন্ধ করে দিয়ে এক্সপি২১০ ইয়ারিস নেমপ্লেট সিরিজ হিসেবে মডেলটিকে পুনরায় চালু করে।

সময়ের সাথে সাথে ভিটজ অনেক চমকপ্রদ পরিবর্তনের মুখোমুখি হয়েছে। এ গাড়ির সর্বশেষ মডেলগুলো দেখতে এর পুরনো মডেলগুলোর চেয়ে একেবারেই আলাদা। নতুন মডেলগুলো অনেকটা দেখতে ইয়ারিসের মতো। মডেলটি বাহ্যিক নানা পরিবর্তনের মুখোমুখি হওয়া সত্ত্বেও এর অভ্যন্তরীণ অবস্থা এখনও একই আছে, যা এর ব্যবহারকারীদের গড়ের উপরে ইঞ্জিনের পারফরম্যান্সে দুর্দান্ত মাইলেজ দেয়।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৪৯৬ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ৩৪.৪ কিমি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৭২ বিএইচপি
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১১১ নিউটন মিটার
  • ট্রান্সমিশন- ৫ স্পিড (এ)

টয়োটা প্রিয়াস হাইব্রিড

টয়োটা প্রিয়াস হাইব্রিড

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ২৬,৮০,০০০ টাকা

টয়োটা রেঞ্জের অন্যান্য বিক্রিত গাড়িগুলোর মধ্যে টয়োটা প্রিয়াস নিঃসন্দেহে সেরা। মানুষ যখন সবুজ বিশ্বের দিকে এগিয়ে চলেছে, তখন জ্বালানি খরচ আর নির্গমনকে উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করার তাগিদে আরও বেশি লোক এই গাড়িটিকে বেছে নিচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে, টেসলা’র মতো বেশিরভাগ বৈদ্যুতিক গাড়িগুলো থেকে পৃথক এই প্রিয়াস গাড়ি তুলনামূলকভাবে সস্তা। এজন্যই বেশিরভাগ মানুষ এটি কিনতে সক্ষম হবেন। প্রিয়াস একটি নির্ভরযোগ্য গাড়ি, যেটি এখনও ভালো মাইলেজের সাথে পর্যাপ্ত পারফরম্যান্স দেয়।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৭৯৮ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ২৬.২৭ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৯৬.৫৫ বিএইচপি @ ৫২০০ আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১৪২ নিউটন মিটার @ ৩৬০০ আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- অটোমেটিক

টয়োটা আইএসটি

টয়োটা আইএসটি

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ১৩,১০,০০০ টাকা

টয়োটা আইএসটি বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় গাড়ি। ঢাকার বেশিরভাগ রাস্তায় প্রায়ই এটা দেখা যায়। এই মডেলটি ভিটজ চ্যাসিসের উপর ভিত্তি করে, প্রাথমিকভাবে একটি হাই-এন্ড মাল্টি-ইউজ সমন্বিত গাড়ি হিসেবে এসইউভি’র স্টাইলিং ও ওয়াগনের মতো পরিসরের সাথে বাজারে ছাড়ার চিন্তা করা হয়েছিলো।

আর্টিস্ট, স্টাইলিস্ট, স্পেশালিস্টদের নিজ নিজ শখের প্রতি যেমন অদম্য টান থাকে, তেমনি এই গাড়ির প্রতি ক্রেতার সেরকম আর্কষণ বোঝাতে এই মডেলের নামের সাথে ‘আইএসটি’ বা ‘ইস্ট’ শব্দটি যুক্ত করা হয়েছে।

আইএসটি বাইরে থেকে ছোট দেখালেও এর ভেতরে একসাথে চার থেকে পাঁচ জন স্বাচ্ছন্দ্যে বসার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে। আরামদায়ক আসনের জায়গার জন্য বুট স্পেসের সাথে খানিকটা আপসই এই মডেলের একমাত্র অপূর্ণতা।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৭৯৮ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ৫.৩৭-৬.০২ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ১৩৪ বিএইচপি @ ৬০০০আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১৭৫ নিউটন মিটার @ ৪৪০০আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- সিভিটি (এ)

টয়োটা স্পেসিও

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ১২,০০,০০০ টাকা

টয়োটা স্পেসিও একটি বিবিধ ব্যবহার উপযোগী গাড়ি, যেটি টয়োটা করোল্লা ভার্সো হিসেবেও পরিচিত। এর সর্বশেষ মডেলটি প্রাথমিকভাবে ইউরোপিয়ান বাজারকে টার্গেট করে তৈরি করা হয়েছিলো, যেখানে গাড়িটি সর্বাধিক বিক্রিত এমপিভিগুলোর মধ্যে একটি।

এ মডেলটির পেট্রোল বা ডিজেল দুই প্রকারই বাজারে রয়েছে, তাই আপনি আপনার জন্য কার্যকরী মডেলটিই পছন্দ করতে পারেন। যদিও এই রেঞ্জের বাকি মডেলগুলোর মতো তেমন চিত্তাকর্ষক মাইলেজ স্পেসিও দেয় না, কিন্তু গাড়িটির বাকি পারফরম্যান্স চমৎকার।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৭৯৬ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ৯.৭৮কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ১১০ পিএস @ ৬০০০আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১৪৩ নিউটন মিটার @ ৪২০০আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- ৪ এটি

টয়োটা সিয়েন্টা

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ২৩,০০,০০০ টাকা

এমনিতে টয়োটা সিয়েন্টা ছোট গাড়ি নয়, কিন্তু এটি একটি ক্ষুদ্র বহু কার্যক্ষমতাসম্পন্ন মডেল। এটি বাজারের অন্যান্য সাত আসনের গাড়িগুলোর তুলনায় স্বল্প বাজেটের মধ্যে ছোটখাটো একটি ভালো বিকল্প। বড় পরিবারগুলোর জন্য সিয়েন্টা একটি সঠিক পছন্দ। পূর্ব-এশিয়ান বাজারে বর্তমানে মডেলটির তৃতীয় প্রজন্ম চললেও বাংলাদেশে এখনও এর প্রথম প্রজন্মই বেশ জনপ্রিয়। বর্তমানে বাজারে এই রেঞ্জের মিনিভ্যানের তুলনায় তুলনামূলক সহজ রক্ষণাবেক্ষণ এবং জ্বালানি খরচ কম হওয়ার জন্য এটি খুবই জনপ্রিয় পছন্দ।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১৪৯৭ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ৯.৭৮কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ১০৯ বিএইচপি @ ৬০০০আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১৪১ নিউটন মিটার @ ৪৪০০আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- সিভিটি (এ)

সুজুকি সুইফট

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ১৮,৪৯,০০০ টাকা

এটি আমাদের দেশের আর একটি জনপ্রিয় ছোট গাড়ি। সুজুকি সুইফট একটি বহুমুখি ব্যবহারযোগ্য গাড়ি যা বিভিন্ন মডেলে বাজারে পাওয়া যায়। এই সংস্করণটি শহরের অভ্যন্তরীণ ভ্রমণের জন্য তৈরি। এটি চমৎকার মাইলেজের সাথে সাথে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সও দেয়। এই মডেলের স্পোর্টস সংস্করণটি গতির জন্য তৈরি, যেটিতে আরও শক্তিশালী ইঞ্জিন ও উচ্চতর টান্সমিশন গিয়ার রয়েছে।

স্বল্প মূল্যের বিকল্প হিসেবে সুজুকি সুইফটকে আরও স্পোর্টি চেহারা দেয়ার জন্য এর দ্বিতীয় প্রজন্মের মডেলটি পুনঃনির্মাণ করা হয়েছিলো। মূল সংস্করণটির চেয়ে এই মডেলটির নকশা অনেক বেশি সুদৃশ্য এবং এই পর্যায়ের অন্যান্য সাবকমপ্যাক্টগুলোর তুলনায় চমৎকার গুণমানসম্পন্ন।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ১১৯৭ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ২২ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৬১ কিলোওয়াট @ ৬০০০ আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ১১৩ নিউটন মিটার @ ৪২০০আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- ৫ এজিএস

সুজুকি অল্টো ৮০০

দামঃ বাংলাদেশে মাত্র ৮,৬৫,০০০ টাকা

সুজুকি অল্টো ৮০০ ভারতের বিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা কোম্পানি মারুতির সাথে যৌথ ভাবে তৈরি। ক্রয়ক্ষমতা বিবেচনায় এ তালিকার সবচেয়ে সস্তা গাড়ি হিসেবে এই মডেলটি খুব সহজেই টাটা ন্যানোর প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারে।

এই মূল্যসীমার মধ্যে অন্যান্য গাড়িগুলোর তুলনায় অল্টো ৮০০ আরও অধিক চমকপ্রদ ও গুণগতমানসম্পন্ন। এটিতে রয়েছে একটি লম্বা ফ্রেম, একটি সুদৃঢ ফ্রন্ট গ্রিল এবং আরামদায়ক আসন। এই মডেলটিতে একটি ডিজিটাল ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেম রয়েছে, যেই বৈশিষ্ট্যটি সাধারণত কম দামের গাড়িগুলোতে পাওয়া যায় না। অন্যদিকে, অল্টো ৮০০ প্রতি লিটারে ২২ কিলোমিটারের দুর্দান্ত মাইলেজ দেয়।

সামগ্রিকভাবে, দামের তুলনায় এই মডেলটি ব্যবহারকারীর প্রাপ্তি অনেকটাই বেশি।

স্পেসিফিকেশনঃ

  • ইঞ্জিন- ৭৯৬ সিসি
  • মাইলেজ- প্রতি লিটারে ২২ কি.মি
  • সর্বোচ্চ ক্ষমতা- ৩৫.৩ কিলোওয়াট @ ৬০০০ আরপিএম
  • সর্বোচ্চ টর্ক- ৬৯ নিউটন মিটার @ ৩৫০০আরপিএম
  • ট্রান্সমিশন- ৫ স্পিড এমটি

উপসংহার

ভবিষ্যত বিবেচনায় ছোট গাড়িগুলো খুবই যুগোপযোগী। অর্থনৈতিক দিক বিবেচনায় এগুলো ক্রয়, রক্ষণাবেক্ষণ, সর্বোপরি জ্বালানি ব্যবহারের হিসেবেও বেশ সহযোগী। দীর্ঘমেয়াদে যদি আপনি আপনার ব্যয় কম রাখতে চান তবে ছোট গাড়িতে বিনিয়োগ করাই একটি আদর্শ পরিকল্পনা।

গাড়ি কেনার সময় যদি কম বাজেটই আপনার মূল লক্ষ্য হয় তবে আমরা আপনাকে সুজুকি অল্টো ৮০০ কেনার পরামর্শ দিবো। কেননা এই মডেলটি এই লিস্টের সবচেয়ে সস্তা গাড়ি, যেটিতে আপনি অনেক চমৎকার সব ফিচার পেয়ে যাবেন। এক্ষেত্রে মূল্যমান বিচারে নিশ্চিতভাবে আপনিই জিতবেন।

অন্যদিকে, যদি আপনি অর্থনৈতিক বিবেচনায় সাশ্রয়ী জ্বালানি খরচ চান, তবে আমরা আপনাকে টয়োটা অ্যাকোয়া কেনার প্রস্তাব দিবো। কেননা, এ মডেলটি এই তালিকার অন্য গাড়িগুলোর তুলনায় সেরা মাইলেজ দেয়।

অবশেষে, আপনি যদি একটি পরিবেশবান্ধব গাড়ি কিনতে চান, আমরা আপনাকে টয়োটা প্রিয়াস সুপারিশ করবো। একটু দামি হলেও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনায় এটি একটি উপযুক্ত বিনিয়োগ। এই গাড়িটি ব্যবহার করলে, এর কম জ্বালানি চাহিদার কারণে আপনি বাতাসে কার্বন নিঃসরণের আধিক্য কমাতে পারবেন, আর এতে করে প্রকৃতপক্ষে আপনি পরিবেশও রক্ষা করতে পারবেন।

আমরা আশা করছি এই লেখাটি আপনাকে আপনার প্রয়োজনমতো একটি সঠিক ছোট গাড়ি খুঁজে পেতে সাহায্য করবে। বাংলাদেশের লেটেস্ট মডেলের গাড়িগুলোর দুর্দান্ত সব লেনদেনের খোঁজ পেতে amarbusiness24.com-এ ভিজিট করুন এবং হাজার হাজার বিক্রেতার মধ্যে থেকে বাছাই করে আপনার ডিলটি চূড়ান্ত করুন।

গ্রাহকদের নিয়মিত কিছু প্রশ্নের উত্তরঃ

কোথায় ছোট গাড়ি কেনা যাবে?

সমগ্র বাংলাদেশে ছোট গাড়ির অনেকগুলো শোরুম রয়েছে। আপনি amarbusiness24.com-এর মাধ্যমেও ছোট গাড়ি কিনতে পারেন, যেখানে নতুন, ব্যবহৃত এবং রিকন্ডিশনড গাড়ির তালিকা রয়েছে। এছাড়াও Bamarbusiness24.com-এ আপনি নিজের সুবিধামতো বাংলাদেশের ছোট গাড়িগুলোর দাম তুলনা করতে পারেন এবং স্থানীয় বিক্রেতাদের চেয়ে কম দামে গাড়িটি কিনে ফেলতে পারেন।

ছোট গাড়ির জন্য কোন ইএমআই সুবিধা রয়েছে কি?

কিছু কিছু শোরুম ইএমআই পরিষেবা প্রদান করে। তাদের অফারের ভিত্তিতে যুক্তিযুক্ত সুদের হারে মাসিক কিস্তি সুবিধা নিতে পারেন। যদি আপনার পছন্দের বিক্রেতা এই সুবিধা না দেয়, তবে আপনি গাড়ির লোনের জন্য যেতে পারেন যেকোনো সময়। এক্ষেত্রে ছোট গাড়িগুলোর জন্য সুদের হার কম।

ছোট গাড়িগুলোর স্থায়িত্ব কতদিন?

আপনার ছোট গাড়িটি ৪ বছরে গড়ে প্রায় ২৫,০০,০০০ কিলোমিটার অবধি মাইলেজ দেবে, এই প্রত্যাশা রাখতে পারেন। নতুন গাড়িগুলোর নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের ক্ষেত্রেই এই অনুমান প্রযোজ্য। আপনি যদি নিয়মিত এই রক্ষণাবেক্ষণ এবং বিশ্বস্ত গ্যারেজে নিয়মিত দেখভালের ব্যবস্থা রাখেন তবে ছোট গাড়িগুলো আরও দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে।

ছোট গাড়িগুলোর রক্ষণাবেক্ষণ খরচ কেমন?

কম রক্ষণাবেক্ষণ খরচই ছোট গাড়ির ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো বিষয়। যেকোনো বড় সেডান বা এসইউভি’র চেয়ে একটি ছোট গাড়ি মেইনটেইন করতে আপনার গড়ে অনেক কম খরচ হবে। একটি টাটা ন্যানোর জন্য ৬ বছরের মধ্যে রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় মোটামুটি ১২,৫০০ টাকার মতো হতে পারে বলে অনুমান করা যায়, আর এতে করে এ সময়ের মধ্যে গাড়িটির তেমন কোনো গুরুতর সমস্যাও হবে না।

Leave A Comment

Cart
Your cart is currently empty.